opurbo

July 7th, 2021

83 Views

No comments

কেন দর্শন বুঝা জরুরী By ডা. অপূর্ব চৌধুরী


জ্ঞান রাজ্যে দর্শনকে বলে রাজা । আর এই দর্শন থেকেই জ্ঞানের দুটি মূল শাখা । একটি হলো দর্শন, আরেকটি বিজ্ঞান ।

মানুষ কিভাবে চিন্তা করবে, এটি গাইড দেয় দর্শন । সে চিন্তা কিভাবে কাজে লাগবে, সেটার পথ যোগায় বিজ্ঞান ।

দর্শনের গাইডে প্রকৃতিকে জানার বিশেষ জ্ঞান প্রক্রিয়া হয়ে ওঠে বিজ্ঞান ।

প্রাচীনকালে, গ্রীক দর্শনের দুটো শাখা ছিল । ফিজিক্স এবং মেটাফিজিক্স ।বাকিটুকু দেখুন

July 7th, 2021

opurbo

July 2nd, 2021

88 Views

No comments

ডাক্তারদের প্রতীক কেন সাপ ও লাঠি By ডা. অপূর্ব চৌধুরী, London, England


ডাক্তারদের প্রেসক্রিপশন থেকে মেডিক্যাল ইনস্টিটিউশন, সার্টিফিকেট থেকে স্বাস্থ্যের উপর কাজ করা অর্গানাইজেশন, বিশ্ব জুড়ে চিকিৎসক এবং চিকিৎসা ব্যবস্থার প্রতীক হিসাবে একটি প্রতীক আছে । সবাই এই প্রতীকটিকে মেডিক্যাল সাইন বা ডাক্তারদের প্রতীক হিসাবে ব্যবহার করেন । প্রতীকটিতে একটি সাপ একটি লাঠিকে পেঁচিয়ে ধরে আছে । কেন এমন প্রতীক ব্যবহার করেন ডাক্তাররা ।

ইংরেজিতে প্রতীকটিকে বলে Rod of Asclepius । এসক্লিপিয়াসের দণ্ড ।

প্রাচীন গ্রীক মিথোলজি অনুযায়ী Asclepius ছিলেন একজন গ্রীক গড । মেডিসিনের দেবতা । স্বাস্থ্য ঠিক রাখা এবং সুস্থ করে দেয়ার দেবতা । এসক্লিপিয়াসের নামে প্রাচীন গ্রীকে অনেকগুলো টেম্পল ছিল । ওগুলোকে বলা হতো হিলিং টেম্পল । অনেকটা আজকের হসপিটালের মতো । সেখানে Asclepius এর কাছে প্রাথর্না করতে আসতেন অসুস্থরা সুস্থ হতে, দেবতার উদ্দেশ্যে মানত করতে । যেমন বিখ্যাত kos দ্বীপ, সেখানেও এরকম Asclepius এর টেম্পল ছিল একটি, যে টেম্পলে কাজ করতেন ফাদার অফ মেডিসিন যাকে বলা হয় – হিপোক্রেটিস ।

এই সব টেম্পলে বিষহীন সাপরা ঘুরে বেড়াতো । প্রাচীন গ্রিকদের ধারনা ছিল সাপ আরোগ্যের আশীর্বাদ । তারা মনে করতো টেম্পলের যেখানে যেখানে সাপগুলো ঘুরে বেড়াতো, সেখানে কোনো অসুস্থ লোককে শুয়ে দিয়ে Asclepius নামে প্রাথর্না করলে রোগ ভালো হয়ে যাবে । তারা সেখানে ঘুমাতো । রাতের বেলা দেবতা তাদেরকে স্বপ্নে তার রোগের ওষুধের কথা বা কি করলে ভালো হবে, এমন নাকি বলে দিতো ! এসব বিশ্বাস তাদের প্রবল ছিল ।

এমন ভাবার কারণ হলো সাপের বিষকে প্রাচীন গ্রীকে একধরনের মেডিসিন ভাবা হতো । সাপের বিষে যেমন মারা যায়, তেমনি সাপের বিষ শরীরে ঢুকিয়ে রোগকে মারা যায় বলে তাদের বিশ্বাস ছিল । তাই সাপ ছিল আরোগ্যের প্রতীক । সাথে সাপের খোলস বা চামড়া কিছুদিন পর পর পরিবর্তন হয় । সাপের এমন প্রক্রিয়াটিকে তারা ভাবতো শরীর অসুস্থ হয়ে পুনরায় সুস্থ হয়ে ওঠার মতো । শরীরের পুনর্জন্ম হওয়া । তাই ক্রমশ সাপ হয়ে উঠলো যেখানে চিকিৎসা নেয়া হয় এবং যারা চিকিৎসা দেয়, তাদের প্রতীক ।

খ্রিষ্ট পূর্ব ৩০০ সালের সময় থেকে এটি জনপ্রিয় সিম্বল হয়ে উঠলো চিকিৎসকদের । শুরুতে সাপ ছিল প্রতীক । ধীরে ধীরে তার সাথে যুক্ত হলো একটি লাঠি । লাঠি কেন এলো !

লাঠির ব্যাখ্যাটিও সাপের মতো । লাঠি হলো শরীর যখন অসহায় হয়ে যায়, অসুস্থ হয়ে যায়, একা চলতে পারে না, তখন তার একটি লাঠির দরকার হয় । শরীর অসুস্থ হলে শরীরকে ঠিক করতে ভরসার প্রতীক হিসাবে আসে ডাক্তার । এই লাঠি ডাক্তারদের প্রতীক, যে তার শরীরকে ঠিক করে দেয়ার ব্যবস্থা করে ।

এমন করে সাপ ওষুধের প্রতীক এবং লাঠি ডাক্তারদের প্রতীক হয়ে একটি কম্বাইন্ড প্রতীক লাঠির চারপাশে একটি সাপ জনপ্রিয় হয়ে উঠলো খ্রিষ্ট পরবর্তী সময়ে গ্রীক এবং রোমানদের মাঝে । রোমানরা যখন পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চল দখল করা শুরু করলো, সাথে প্রতীকটিও ইউরোপ সহ পৃথিবীর অনেক অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়লো ।

বর্তমানে এই Rod of Asclepius বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে শুরু করে পৃথিবীর বেশিরভাগ স্বাস্থ্য সম্পর্কিত জায়গায় ব্যবহার করা হয় ।

July 2nd, 2021

opurbo

June 29th, 2021

145 Views

No comments

এনাল সেক্স ট্যাবু কেন By ডা. অপূর্ব চৌধুরী London, England


শিরোনাম পড়লেই নাক সিঁটকে উঠবে । এটি স্বাভাবিক । কারণ বিষয়টি যতটা সেক্স নিয়ে নয়, তার চেয়ে এনাল সেক্স শব্দটি পড়েই অনেকের এলার্জি হয় । বিষয়টি বিতর্কিত, কিন্তু গোপনে গোপনে হয় । বিষয়টি স্পর্শকাতর, কারণ বিষয়টি সামাজিক ট্যাবু হয়ে যায় ।

যারাই এ বিষয়টি পড়বেন – তাদের মধ্যে তিন ধরনের মানুষ পাওয়া যাবে ।

প্রথম দল : সবচেয়ে বেশি মানুষ পাওয়া যাবে যারা এটি মোটেও পছন্দ করে না, এটি নিয়ে ভাবতে কিংবা শুনতেও চায় না ।

দ্বিতীয় দল পাওয়া যাবে – যারা গোপনে এটি পছন্দ করেন, কিন্তু সামাজিক লজ্জার ভয়ে কখনো স্বীকার করেন না, এমনকি পার্টনারের কাছেও না ।

তৃতীয় দল – যারা এটি পছন্দ করেন এবং উপভোগ করেন ।বাকিটুকু দেখুন

June 29th, 2021

opurbo

June 26th, 2021

98 Views

No comments

মুভি : পূর্ব বনাম পশ্চিম By অপূর্ব চৌধুরী


পশ্চিমে মুভিগুলোর প্রধান থিম : স্টোরি, এক্টিং এবং ক্যামেরা । কাহিনী, অভিনয় এবং ছবির কোয়ালিটি ।

উপমহাদেশে ফিল্মগুলোর প্রধান বৈশিষ্ট্য : নায়ক-নায়িকা, নাচ-গান এবং পোশাক- মেকাপ ।

পশ্চিমে অভিনেতা-অভিনেত্রীরা মিডিয়া গসিপের সেলেব্রিটি, কিন্তু সমাজের মানুষের কাছে আইডল কেউ না, নিছক এন্টারটেইনার । ফিল্মে তারা কি পরে, কি খায়, কিভাবে চলে-বলে, এইগুলো লোকের উপর তাই কোনো প্রভাব ফেলে না । বিনোদন পেতে তাদের কাছে যায় লোকে, এর চেয়ে বেশি কিছু নয় । পশ্চিমের লোকদের ব্যক্তি চিন্তা, স্বাধীনতা এবং মতামত প্রকাশে মুভি এক্টর-এক্ট্রেসদের তেমন কোনো প্রভাব নেই, যদি না তারা রাজনৈতিক বা সামাজিক কোনো কিছুতে ভূমিকা না রাখে ।বাকিটুকু দেখুন

June 26th, 2021