কেন আমি দেশীয় বেশিরভাগ গল্প-উপন্যাসকে মৌলিক সাহিত্য বলি না By অপূর্ব চৌধুরী, London, England


সময়, প্রামাণিক এবং গবেষণার অভাব; তবে বেশিরভাগ গল্পকাররা এক গল্পকার থেকে আরেক গল্পকার গল্পটা চুরি করে তাতে নিজের রঙ মিশিয়ে নতুন গল্পের পয়দা করে । চুরির নতুন মাল থেকে আরেক চোর মৌলিক মনে করে স্যুট প্যান্ট খুলে হালকা-পাতলা এদিক সেদিক লুঙ্গি-কামিজ পরিয়ে নিজের প্রোডাক্টের মোড়ক বানিয়ে নেয় । কেহ বাহির থেকে নেয়, কেউ ভিতর থেকে নেয় । কেউ পড়তে পড়তে ভুল করে নিজের সওদা মনে করে টুকলিফাই করে নেয় ।

যত ভালো গল্পকার, তত ভালো চোর ।

কল্পনায় চৌর্য্যবৃত্তির মজা আছে ! কল্পনাতো কেউ দেখে না । 😄😄

রবীন্দ্রনাথও ভিক্টরিয়ান রোমান্টিক থেকে নিতেন, বনফুলও মোপাসাঁ থেকে অপহরণ করতেন । শরৎ, সুনীল বাবুরাও গেঁড়া করা থেকে বাদ যেত না ।

মৌলিক কাহিনী পৃথিবীতে খুব বেশি নয় ।

হুমায়ূন আহমেদ এই চুরিটা ভিন্ন কৌশলে স্বীকার করে গিয়েছিলেন তার এক লেখায় । সে লেখায় তার বক্তব্যের সারমর্ম ছিল – জগতের বেশিরভাগ গল্প লেখা হয়ে গেছে, নতুন গল্পগুলো পুরোনো গল্পগুলোর মিশেল ।

৯৫/৯৬ এর পর হুমায়ুন আহমেদের বছরে পাঁচ-ছয়টি গল্প লেখার গল্প বলি ।
উনি প্রচুর মুভি দেখতেন । সেটা ওনার ক্লাস সেভেন থেকে নেশা । সিনেমা হলের টিকেট চেকার টর্চম্যানের সাথে খাতির করে তার টুলে বসেও নাকি বিনা পয়সায় সিনেমা দেখতেন হলে গিয়ে । পকেটে হয়তো পয়সা থাকতো না । এমনকি বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে আনিস সাবেত, আহমদ ছফা এবং হুমায়ুন মিলে তিন বন্ধুর শখ ছিল সিনেমা ডিরেক্টর হবেন । তো যা বলছিলাম – হুমায়ুন আহমেদ গল্পের মূল প্লট কালেক্ট করতেন বিদেশী মুভি থেকে, ভালো একটি অংশ নিতেন হিন্দি ছাড়া ভারতীয় অন্য ভাষার মুভি থেকে । যেমন : তামিল, তেলেগু, মালায়লাম, এসব ভাষার মুভি থেকে । ভারতীয় অন্য ভাষার মুভিগুলোর মৌলিকত্ব হিন্দির চেয়ে ভালো । হিন্দি বেশিরভাগ মুভি বিদেশী ভাষা এবং ভারতীয় অন্য ভাষা থেকে কপি করা ।

তো আহমদ সাহেব মাঝে মাঝে রাতভর থ্রি ফাইভ সিগারেট খেতেন, ভিডিও শপ থেকে ভাড়া করে আনা ভিডিও চার পাঁচ টি মুভি এক রাতে ফরোয়ার্ড করে করে দেখে শেষ করতেন । এভাবে দেখে দেখে যেগুলোর দেশি গল্পের আবহে রূপ দেয়া যায়, খাপে খাপ বসানো যায়, চার পাঁচটি ঘটনার আবহ কয়েকদিন মাথায় ঘুরিয়ে একদিন সেগুলো থেকে নিজের কোনো ঘেঁটু পুত্র প্রসব করতেন ।

তার মেজো ভাইটির কথা নাইবা বললাম ! দেশি পাঠকরা এখন বিদেশী সাহিত্য-সাইন্স ফিকশন পড়ে বলে এখন তারা ভালোই জানে, জাফর স্যারের লেখাগুলো থেকে চুরি করে বিদেশী খ্যাতনামা লেখকরাই আসলে নিজেদের ভাষায় লিখে । 😂😂😂

“চুরি বিদ্যা মহাবিদ্যা যদি না পড়ে ধরা”

😄😄😄



December 1st, 2021